গরমে গরম পানি খাবার এই উপকারিতাগুলো জানলে আপনি রোজ খাবেন

আমরা সবাই জানি পর্যাপ্ত পানি পান করলে শরীর অনেক অসুখ থেকে মুক্ত থাকে। তাইতো চিকিৎসকরা সবসময় একজন প্রাপ্ত বয়স্ক মানুষকে প্রতিদিন আট গ্লাস পানি পান করা পরামর্শ দিয়ে থাকেন। আমামদের মধ্যে এমন অনেকেই আছেন যারা এর থেকে বেশি পানিও পান করে থাকেন।

তারপরও তাদের সমস্যা কমে না। দেখা পর্যাপ্ত পানি পান করার পরও তাদের ত্বক, চুল কিংবা শরীরে পানির অভাবে সমস্যা দেখা যায়। আসলে কখন কতটুকু পানি পান করা উচিত তা আমরা অনেকেই জানি না।

গরমকালে ফ্রিজের ঠাণ্ডা পানি পান করলে নিমিষেই প্রাণ জুড়িয়ে যায়। তাইতো বেশিরভাগ মানুষ গরমে ঠাণ্ডা পানি পান করে থাকেন। জানেন কি, এতে সাময়িক প্রশান্তি মিললেও আসলে তা ক্ষতির কারণ হয়ে দাঁড়াতে পারে। তাই গরমে ঠাণ্ডা পানি নয়, গরম পানি পান করা ভালো। এর কারণ হলো, গরম পানি পান করার অনেক উপকারিতা রয়েছে, যা ঠাণ্ডা পানি পান করলে পাওয়া যায় না।

চলুন এবার জেনে নেয়া যাক গরমে গরম পানি পান করার আশ্চর্য উপকারিতাগুলো সম্পর্কে বিস্তারিত-

দ্রুত হজম হয়

হজমের সমস্যা হলে গরম পানি পানের অভ্যাস করুন। প্রয়োজনীয় পানি পান না করলে ক্ষুদ্রান্ত আমাদের শরীরের ভেতর থেকে পানি শোষণ করে। এর ফলে দেখা দেয় পানিশূন্যতা এবং হজমের নানা সমস্যা। এভাবে চলতে থাকলে দেখা দিতে পারে কোষ্ঠকাঠিন্য, গ্যাস ও পেট ফাঁপার মতো সমস্যা। তাই ঠাণ্ডা পানির বদলে গরম পানি পান করুন। এটি পুরো হজম প্রক্রিয়ায় সাহায্য করবে। তবে ফুটন্ত গরম পানি পান করবেন না, হালকা গরম হলেই যথেষ্ট।

ওজন নিয়ন্ত্রণ করে

ওজন নিয়ন্ত্রণে রাখার জন্য অনেকেই গরম পানি পানের অভ্যাস করেন। হালকা গরম পানি শরীরের মেটাবলিজম বাড়িয়ে অতিরিক্ত ফ্যাট ঝরাতে সাহায্য করে। বিশেষজ্ঞরা বলছেন, খাবার খাওয়ার আগে দুই গ্লাস হালকা গরম পানি খেলে মেটাবলিজম রেট অন্তত ত্রিশ শতাংশ বৃদ্ধি পায়। এর ফলে শরীরে জমে থাকা বাড়তি মেদ দ্রুত ঝরে। সকালে ঘুম থেকে ওঠার পরেও হালকা গরম পানি পান করলে উপকার পাওয়া যায়।

সাইনাসের সমস্যা দূর করে

গরমেও অনেকের গরম-ঠাণ্ডার কারণে সর্দি লেগে যেতে পারে। অনেকের আবার রয়েছে সাইনাসের সমস্যা। সর্দি-কাশি কিংবা ঠাণ্ডা লাগার সমস্যায় গরম পানি উপকারী একথা জানেন নিশ্চয়ই। তাই এ ধরনের সমস্যা দেখা দিলে গরম পানি পান করুন। নিয়মিত গরম পানি পান করলে তা জমে থাকা মিউকাস দূর করতে সাহায্য করে। এতে গলাব্যথার মতো সমস্যাও দ্রুত ভালো হয়।

প্রাকৃতিকভাবে বিশুদ্ধ রাখে

আমাদের শরীরে নানা রকম বিষাক্ত পদার্থ জমানোর জন্য অনেকটাই দায়ী আমাদের খাদ্যাভ্যাস। আমরা প্রায় সবাই অতিরিক্ত মশলাদার, ভাজাপোড়া জাতীয় খাবার খেতে পছন্দ করি। আবার খাবার খাওয়ার জন্য নির্দিষ্ট সময়ও মানি না। এসব কারণে শরীরে বিষাক্ত পদার্থের মাত্রা বেড়ে যেতে পারে। এর বাইরে দূষণ ও জীবনযাপনের নানা অনিয়ম তো রয়েছেই। যেসব ডিটক্স ড্রিংক উপকারী, তা তৈরি করে খাওয়ার সময় মেলে না অনেকেরই। তাই আপনি যদি চান শরীর বিষমুক্ত, সুস্থ থাকুক তবে গরম পানি পানের অভ্যাস করুন। গরম পানি পান করলে তা আমাদের শরীরের তাপমাত্রা বাড়ায়। এর ফলে ঘাম হয়। শরীরে জমে থাকা বিষাক্ত পদার্থ ঘামের সঙ্গে বের হয়ে যায় অনেকটাই।

৫০০০+ মজদার রেসিপির জন্য Google Play store থেকে Install করুন “Bangla Recipes” মোবাইল app…. 🙂
.
মোবাইল app Download Link >>> Bangla Recieps App

Loading...